নিঃস্ব ব্যাক্তির কষ্ট লাঘব

নাসির উদ্দিন হোজ্জার গল্প-


সংগ্রহে- মোঃ নাহিদুজ্জামান

নাসিরুদ্দিন হোজ্জা ছিলেন জ্ঞানী ও রসিক। একদিন তিনি দেখলেন একজন দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে একটি মসজিদেও সামনে সিঁড়িতে বসে আছে। মনে হচ্ছে শত জনমের অভাবে তার জীবনটা যেন অন্ধকার হয়ে গেছে। পাশেই রয়েছে তার এশটি পোটলা। পোটলা তে তার আজকের খাবার। তার এই পাংশু মুখটা দেখে নাসিরুদ্দিন এর মনে একটা বুদ্ধি এলো। আর অমনি তিনি তার পোটলাটা নিয়ে দৌড় দিলেন। সেই লোক ও তখন নাসিরুদ্দিনের পিছে পিছে দৌড়াতে লাগল। দৌড়াতে দৌড়াতে নাসিরুদ্দিন এশটি বনের মধ্যে ঢুকে গেলেন। লোকটি তাকে আর খুঁজে পেল না। লোকটির চোখে জল এসে গেল- এই ভেবে শেষ পর্যন্ত শেষ সম্বল পোটলাটাও হারালাম। এদিকে নাসিরুদ্দিন বনের অপর প্রান্ত দিয়ে এসে ঠিক যেখানে পোটলাটা ছিল সেখানে রেখে দিলেন। লোকটি নাসিরুদ্দিনকে না পেয়ে ফিওে এসে দেখে তার পোটলা। পোটলাটা পেয়ে তার সেকি আনন্দ। পাওয়ার আনন্দ যেন আর ধওে না। উপরের দিকে মুখ তুলে আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করল। পরে এক সময় নাসিরুদ্দিন তার কাছে এসে তার কাছে ক্ষমা চাইলেন আর বললেন আপনার ঐরুপ মনের অবস্থা দূর করার জন্যই আমি এমনটা করেছিলাম।

শিক্ষনীয় বিষয়ঃ আমাদের যা আছে তার জন্যে আনন্দিত হইনা। যা নাই তার জন্য কষ্ট পাই।

All News

বিয়ে কি, কেন এবং কিভাবে করবেন?

এ বি এম মুহিউদ্দীন ফারাদী (পর্ব-১, ভূমিকা) বুঝ হওয়া মাত্র প্রত্যেক ছেলে-মেয়ে কল্পনার মানসপটে চুপিচুপি এমন একজনের ছবি আঁকে এবং আনমনে এমন একজনের কথা ভাবে, যাকে সে একান্ত আপন করে কাছে পেতে চায়। মনের অজান্তে তাকে ঘিরে রচিত হয় স্বপ্ন প্রাসাদ। কে হবে তার সুখ-দুঃখের চির সাথী, বন্ধু ও প্রিয়জন?Read More

ইচ্ছে